সত্যিকারের ভালোবাসা চেনার কিছু উপায়

হ্যালো বন্ধুরা আশা করছি আপনারা সবাই অনেক ভাল আছেন তো বন্ধুরা আপনাদের মধ্যে অনেকেই আমাদের কাছে জানতে চেয়েছিলেন যে আপনি কিভাবে বুঝবেন আপনার ভালোবাসার মানুষটি আপনাকে সত্যিকারের ভালোবাসে কি না ?

তো সবার প্রথমে তো আমি এটাই বলব যে যদি আপনি জানতে চান? যে সে আপনাকে রিয়েল লাভ করে কি না তাহলে আপনাদের সবার প্রথমে তার মন বুঝতে হবে । আর আমরা এটাও জানি যে অন্য কারোর মনকে পুরোপুরিভাবে বুঝতে পারা কখনোই পসিবল নয়।

কিন্তু যখন আমরা কাউকে সত্তিকারের ভালোবেসে ফেলি তখন আমাদের আচরণে অনেক রকম পরিবর্তন আসে আর এই ছোটখাটো আচরণে থেকেই এটাও বোঝা সম্ভব যে আমাদের প্রিয় মানুষটি আমাদেরকে আদৌ ভালোবাসে কি না?

 

নাম্বার:১ হাউ মাচ ইন রেস্পেক্ট ইউ


যে মানুষ আপনাকে ভালোবাসে সে অলওয়েজ আপনাকে সম্মান করবে আপনাকে গুরুত্ব দেবে আর এই রেস্পেক্ট যে শুধু অন্য মানুষদের সামনে দেখাবে তা কিন্তু নয় সত্যি কারের ভালবেসে থাকলে সে আপনাকে অলয়েজ যেকোন সিচুয়েশনে রেস্পেক্ট করবে ।

এমনকি যদি আপনি এমন কিছু করে ফেলেন যাতে সে কষ্ট পায় বা আপনাদের মধ্যে ঝগড়া হয়ে যায় কারন প্রয়োজনের সময় সম্মান তো সবাই দেখাতে পারে কিন্তু যে সত্যি কারে ভালোবাসে সে শুধু ভালোবাসতেই জানে ।

সে কঠিন সময় হোক বা ভালো সময় হোক যেমন ধরুন যখন আপনি তার সঙ্গে রাস্তা দিয়ে হাঁটছে না অন্য কোথাও গিয়ে যদি সে অন্য কোন মেয়ের দিকে বারবার তাকাতে থাকে তাহলে তো বুঝা যায় যে তার কাছে আপনার কোনো সম্মান নেই কারন যে সত্যি কারের ভালোবাসে তার কাছে নিজের গার্লফ্রেন্ড বা বয়ফ্রেন্ড ই হলো পৃথিবীর সবথেকে সুন্দর মানুষ।

নাম্বার ২ ফিউচার স্টিক

অনেক রিলেশন এমনই থাকে যাদের রিলেশন শুধুমাত্র নামেমাত্র বয়ফ্রেন্ড এবং গার্লফ্রেন্ড এর তাদের মধ্যে ভালোবাসা নামে কিছুই থাকে না তাদের মানসিকতা থাকে ।

অনলি শো অফ করার পৃথিবীতে দেখানোর যে আমারও গার্লফ্রেন্ড বা বয়ফ্রেন্ড আছে আমার গার্লফ্রেন্ড সবথেকে বেশি সুন্দর ওকে নিয়ে এখানে ঘুরতে যায় ওখানে যাব ইত্যাদি ইত্যাদি অর্থাৎ তাদের ফিউচার নিয়ে কোনোরকম পরিকল্পনা থাকে না ।

যাকে বলে দুদিনের টাইমপাস রিলেশনশিপ আপনার প্রিয় মানুষটি যদি এমনই হয়ে থাকে তাহলে তো এটাই বুঝতে হবে যে সে আপনাকে ইউজ করছে নিজেকে অহংকারকে সন্তুষ্ট করার জন্য কিন্তু যে আপনাকে সত্তিকারের ভালোবাসে সে আপনাকে নিয়ে ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখে যেমন ধরুন আপনার ভবিষ্যতে কি করবেন ।

কেমন ভাবে থাকবেন আপনাদের ম্যারেজ কিভাবে হবে ইত্যাদি ইত্যাদি অর্থাৎ শুধু গার্লফ্রেন্ড বা বয়ফ্রেন্ড এই নয় যে আপনাকে সত্তিকারের ভালোবাসে সে আপনাকে তার লাইফ পার্টনার মনে করে আর অলওয়েজ সে আপনাকে তার হাজবেন্ড ওয়াইফের চোখেই দেখে ।

নাম্বার ৩ ফরগিভনেস

কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বলেছিলেন যাকে ভালোবাসো তাকে যদি ক্ষমা না করতে পারো তাহলে তাকে কেমন ভালোবাসো কথাটি কিন্তু সত্যি বাস্তব কারন মানুষ মাত্রই ভুলতো হয়ই।

আর আপনার সবগুলো শুধুমাত্র সেই ক্ষমা করতে পারে যে আপনাকে সত্যিকারের ভালোবাসে আর যে আপনার সাথে জাস্ট টাইম পাস করছে ।

সে অলয়েজ চায় আপনার ভুলগুলো কে বারবার সামনে এনে আপনাকে ছোট করতে এবং এই ভুল গুলোর কথা মনে করিয়ে আপনাকে সম্মত কন্ট্রোল করতে পারে কিন্তু এর মানে আবার এই নয় ।

যে সে আপনাকে খুব ভালোবাসে আর আপনার সব ভুল ক্ষমা করে দেয় তার মানে এই যে আপনি ইচ্ছা করে ভুল করার নাম করে অন্য কারো সাথে গোপন সম্পর্ক রাখবেন এই কাজের কিন্তু কোন ক্ষমাই হয় না কারন ক্ষমা তো শুধু ভুল করলেই করা যায় যেটা মানুষ না বুঝেই করে ফেলে ।

কিন্তু জেনে শুনে ভুল কথা বলে না জেনে শুনে এমন কাজ করার অর্থ হলো আপনার ডাইরেক্টলি ধোঁকা দিচ্ছেন তাই ঠিক যেমন জেনেশুনে আগুনে ঝাঁপ দিলে আপনি পুড়বেনই নিজের লাইফ আপনাকে কেউ আর কখনো ফিরিয়ে দিতে পারবে না ।

ঠিক তেমনি নিজের ইচ্ছায় কাউকে ঠকালে তার ক্ষমা হয় না তাই সবশেষে আপনাদেরকে এটাই বলব যে কাউকে ঠকানোর আগে তার জায়গায় নিজেকে একবার রেখে বিচার করে দেখুন যে আপনার সঙ্গে এমন তাহলে আপনি কী করতেন আর আপনার কতটা কষ্ট হতো?

Comments

You must be logged in to post a comment.